নেচারাল বাইপাস (এনবিপি) :

নেচারাল বাইপাস সর্বাধুনিক বিজ্ঞানভিত্তিক প্রমাণিত উপায় ও প্রায় শতভাগ সফল একটা হৃদরোগ চিকিৎসা পদ্ধতি। এর জন্য একটা সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় কম্পিউটারাইজড মেশিন প্রয়োজন যার মাধ্যমে ৩০-৫০টি সেশনে চিকিৎসা নিলে মানুষের হৃদপিত্তে সুপ্ত রক্তনালি সক্রিয় ও সচল হয়ে হৃদপিন্ডের রক্ত সরবরাহ বৃদ্ধি করে। এ মেশিনের নাম EECP/ECP/PANB। রক্তনালির ভিতরের দেয়ালের কোষ (Endothelial Cells) কেবলমাত্র রক্ত প্রবাহজনিত ঘর্ষণ ও চাপে Antigenic Growth Factors (AGF) নামক রাসায়নিক দ্রব্য উৎপন্ন হয়। AGF সুপ্ত রক্তনালী খুলে দেয় এবং প্রয়োজনীয় নতুন রক্তনালী তৈরি করে। এ মেশিনে এক ঘণ্টার চিকিৎসা নিলে Vascular Endothelial Growth Factor (VEGF) প্রায় ২১% এর বেশি উৎপন্ন হয়। উক্ত মেশিনে চিকিৎসা নিলে রক্তনালির দেয়ালে রক্ত প্রবাহজনিত তীব্রচাপে প্রদাহ অবসানকারী কার্যকারিতা (Anti Inflammatory Effect) বৃদ্ধি পায়। রক্তনালির প্রসারণ ও সংকোচন (Vascular Reactivity) ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। যে বহুবিধ উপায়ে ব্যায়াম মানুষের উপকার করে, ECP মেশিন রক্ত সরবরাহ বৃদ্ধির মাধ্যমে একইরূপে স্বাস্থ্যকে উন্নততর করে। এটা রক্তনালির ভিতরের আবরণের কোষ-ক্রিয়ার উন্নয়ন ঘটায়। এ মেশিনে চিকিৎসা চলাকালিন সময়ে এন্ডোথেলিন ৪০% এবং চিকিৎসা শেষে ১ মাস পর্যন্ত ২০% হারে কমতে থাকে।এ মেশিনের চিকিৎসার ফলে রক্তনালির অন্যতম সংকোচক এনজিওটেনসিল-২ এর মাত্রা উল্লেখযোগ্য পরিমাণে হ্রাস পায়। ওপরোক্ত ধনাত্মক (Positive) প্রভাব এ মেশিনে চিকিৎসা শুরু হওয়ার সাথে সাথেই পরিলক্ষিত হয়। যদিও সমান্তরাল পার্শ্ব রক্তনালী (Collateral Blood Vassels) সৃষ্টি ও তাদের কার্যকারিতা শুরু হতে কয়েক সপ্তাহ লেগে যায়, তবুও রক্তনালির কোষের বায়ো-রসায়নের পরিবর্তন যেমন নাইট্রিক অক্সাইডের মাত্রা বৃদ্ধি ও এন্ডোথেলিনের মাত্রা হ্রাস সাথে সাথেই শুরু হওয়ার কারণে রোগিরা এ চিকিৎসা শুরুর প্রথম সপ্তাহ থেকেই অপেক্ষাকৃত সুস্থবোধ করেন।সাওল হার্ট সেন্টারে প্রতিদিন সকাল ৮টা-রাত ৯টা পর্যন্ত নেচারাল বাইপাস (এনবিপি) চিকিৎসাসেবা দেওয়া হয়।সাধারণতঃ প্রতিবার ১ ঘণ্টা করে করে মোট ৩৫ ঘণ্টা কোর্স করতে ডাক্তার পরামর্শ দেন।