হার্টের ব্লকেজ

হার্টের ব্লকেজ পরিচিতিঃ

হার্টে জড়িত রক্তনালিতে দিনদিন চর্বি জমতে থাকে। ফলে রক্তনালি ক্রমশ সরু হয়ে পড়ে এবং রক্তের স্বাভাবিক প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হয়। ক্রমেই বৃদ্ধি পাওয়া চর্বি রক্তনালিকে ৭০ ভাগ ব্লক করে বা চেপে ফেললে হার্টে ব্লকেজ রোগের লক্ষণ দেখা দেয়।

হার্টে ব্লকেজ থাকার লক্ষণঃ

বুকে ব্যথা হয়
বুক ধড়ফড় করে
বুক জ্বালাপোড়া করে
মাথা শরীর ঘামে
বদ হজমের মতো অস্বস্তি লাগে
শ্বাসপ্রশ্বাসে কষ্ট হয়
হাঁটলে বুকে ব্যথা হয়
ওপরে উঠতে বুকে ব্যথা হয়
নিচের দিকে ঝুঁকে কিছু করতে কষ্ট হয়
সামান্য ভারী কিছু বহন করতেও কষ্ট হয়
ব্লকেজ থাকলেও কোনো-কোনো ক্ষেত্রে উপসর্গ নাও থাকতে পারে
হার্টে ব্লকেজ হওয়ার কারণ
অপরিমিত ক্যালরি গ্রহণ
ভারসাম্যহীন খাদ্য গ্রহণ
চর্বি, তৈলাক্ত, কম আঁশযুক্ত খাবার গ্রহণ
উচ্চ রক্তচাপ
ডায়াবেটিস
অতিরিক্ত মানসিক চাপ
তামাক/ধূমপান/মদ্যপান
জেদী স্বভাব
পরিশ্রমহীনতা
অতিওজন

হার্টের ব্লকেজ নির্ণয় ও নিরাময়ে প্রচলিত পদ্ধতিঃ

আমেরিকা ইউরোপ ভারত বাংলাদেশসহ পৃথিবীর অনেক দেশে হৃদরোগের চিকিৎসাপদ্ধতি দুই ধারায় পরিচালিত। এক. ইনভেসিভ পদ্ধতি। দুই. নন-ইনভেসিভ পদ্ধতি। ইনভেসিভ পদ্ধতিতে হার্টের ব্লকেজ নির্ণয়ে ইসিজি ইটিটি ইকো ইত্যাদি করা হয়। আর চূড়ান্তভাবে বুঝতে রোগীর উরুস্থানের বিশেষ ধমনীর ভিতরে কৃত্রিম টিউব বা নল ঢুকিয়ে তার ভিতর দিয়ে ক্যামেরাযুক্ত তার ঢুকিয়ে হার্টের ছবি তুলে এনে বা এনজিওগ্রাম করে হার্টের ব্লকেজ কয়টা এবং কতটা তা নির্ণয় করা হয়। একইভাবে উরুস্থানের বিশেষ ধমনীতে কৃত্রিম টিউব ঢুকিয়ে তার ভিতর দিয়ে তারের সাহায্যে হার্টের রক্তনালির ভিতরে রিং বসানো হয়। অথবা রোগীর পা থেকে ধমনী কেটে নিয়ে তা বুকে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে হার্টের রক্তনালিতে জোড়া দিয়ে রক্তের বাইপাস বা চলাচলের ব্যবস্থা করা হয়।

হার্টের ব্লকেজ নির্ণয় ও নিরাময়ে সাওল পদ্ধতিঃ

সাওল পদ্ধতি নন-ইনভেসিভ। সাওল হার্টের ব্লকেজ নির্ণয়ের ক্ষেত্রে রোগীকে এনজিওগ্রাম না করে মেশিনের সাহায্যে সিটি এনজিওগ্রাফি করার পরামর্শ দেয়। পাশাপাশি- এক. জরুরি চিকিৎসা জ্ঞান, দুই. আধুনিক মেশিন ও মেডিসিন, তিন. আদর্শ জীবনশৈলী এবং চার. পরিকল্পিত খাদ্যাভ্যাস সমন্বিত চিকিৎসাপদ্ধতির মাধ্যমে হার্টের ব্লকেজ দূর করে। সাওল চিকিৎসাপদ্ধতি আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের পুরোপুরি অনুসারী এবং এর সফলতা প্রায় শতভাগ।

সাওল চিকিৎসাপদ্ধতি ডা. বিমল ছাজেড় এমবিবিএস এমডি-র আঠারো বছরের চিকিৎসাগবেষণার সুফল। এটি নিখিল ভারত চিকিৎসা বিজ্ঞান সংস্থার অনুমোদিত। রিভার্সাল হার্ট ডিজিজের জনক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডা. ডিন অরনিশ সাওল চিকিৎসাপদ্ধতিকে জোরালোভাবে সমর্থন করেছেন। গত পনের বছর ধরে সাওল চিকিৎসাপদ্ধতি ভারতে সফলভাবে পরিচালিত হচ্ছে। পঁয়ত্রিশ হাজারেরও বেশি হৃদরোগী রক্তনালিতে বাইপাস অপারেশন ও রিং স্থাপন না করে সাওলচিকিৎসায় ব্লকেজ মুক্ত হয়ে স্বাভাবিক জীবন যাপন করছেন।

যাঁর হার্টে ব্লকেজ আছে, এক বা একাধিকবার হার্ট অ্যাটাক হয়েছে, বাইপাস অপারেশন অথবা রিং স্থাপন করা হয়েছে অথবা যেসব রোগী এসব ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ পেয়েছেন, অন্যদিকে যাঁর ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, মানসিক চাপ, শারীরিক অতিওজন ও উচ্চমাত্রার চর্বি আছে, তাঁরা স্বাভাবিক খরচে সম্পূর্ণ ঝুঁকি ও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াহীন সাওল চিকিৎসাপদ্ধতিতে সুনিশ্চিত সুস্থতা লাভ করতে পারেন।

হার্টের ব্লকেজ নিরাময়ে প্রচলিত ও আধুনিক চিকিৎসাপদ্ধতিঃ

প্রচলিত পদ্ধতি আধুনিক পদ্ধতি
বাইপাস সার্জারি নেচারাল বাইপাস
রিং বসানো বায়োকেমিকাল এনজিওপ্লাস্টি

হার্টের প্রচলিত ও আধুনিক চিকিৎসাপদ্ধতির পার্থক্যঃ

প্রচলিত পদ্ধতি আধুনিক পদ্ধতি
কাটা-সেলাই প্রক্রিয়া ও পুরানো প্রযুক্তি কাটাছাড়া ও আধুনিক প্রযুক্তি
আংশিক ও অস্থায়ী চিকিৎসা পূর্ণাঙ্গ ও স্থায়ী চিকিৎসা
অনিরাপদ ও ক্ষতকর চিকিৎসা নিরাপদ ও ক্ষতহীন চিকিৎসা
লোকাল বা স্থানিক চিকিৎসা সিস্টেমিক বা সর্বশরীর চিকিৎসা
অনিশ্চিত সুফল প্রায় শতভাগ সুফল
অল্প ব্যয় অধিক ব্যয়