কেন বাইপাস সার্জারি নয়?

CABG বা Coronary Artery Bypass Grafting (যা সাধারণত Bypass Surgery নামে পরিচিত) আসলে করোনারি আর্টারির মধো দ্বিতীয় টিউব দেয়ার পদ্ধতি। ব্লকেজগুলো অপসারিত হয় না। হৃদযন্ত্রের আর্টারির মধ্যে নতুন একটি কৃত্রিম সমান্তরাল আর্টারি সংযোগ তৈরি করা হয়। ফলে হার্টের যে অংশে রক্ত চলাচল ঘটে না এই পদ্ধতিতে সে অংশে রক্ত পৌছে যায়।

এই সার্জারি বা অপারেশন অসুবিধাগুলো হলো, সকল অপারেশন বা শল্যচিকিৎসার মধ্যে এই অপারেশন সবচেয়ে জটিল, অন্য যে কোনো সার্জারির চেয়ে অনেক বেশি কাটাকাটি হয়। প্রধান হাড় কেটে বুক খুলে কাজ করা হয়, যে হাড় বুকের সামনে অবস্থিত Rib bone নামে পরিচিত। একটি জ্যাক দিয়ে রিবগুলোকে দুই পাশে টেনে আটকে বুক ফাক করা হয়। কৃত্রিম উপায়ে হার্টকে থামানো হয়, একটি-লাং বাইপাস মেশিন দিয়ে রক্ত সরবারাহ করা হয়। এই সমই শরীরের অন্যান্য অল্প কিছু প্রকৃত রক্তনালী কাটা যায়। সেগুলো পা, কপাল ও বুকের আলাদা সার্জারির মাধ্যমে অল্পকিছু প্রাকৃতিক টিউব অপাসারণ করে টিউবগুলোকে করোনারি আর্টারির সঙ্গে সেলাই করে বাইপাস রুট তৈরি করে দেওয়া হয়।

এই ধরণের সার্জারির প্রধান সমস্যা হলো অপারেশনের কারণে মৃত্যু বা হার্ট অ্যাটাক, হার্ট ফেইলিওর। এমনকি এর মাধ্যমে করোনারি আর্টারিতে রক্ত সরবারাহে উন্নতি হলেও (এই অবস্থা প্রাকৃতিক বাইপাস পদ্ধতিতেও করা যায়) সেলাই, বিভিন্ন জায়গায় ব্যথা (যেখান থেকে বাইপাস আর্টারি অপসারণ করা হয়েছে) ইত্যাদির কারণে রোগীর সারাজীবন ভোগান্তি হয় এবং রোগীকে সারাজীবন ওষুধ গ্রহণ করতে হয়, ডাক্তারের পরামর্শমত চলতে হয় এবং সব প্রতিস্থাপিত টিউবগুলোতে আরোও দ্রুত গতিতে ব্লকেজ হয়। এই সার্জারি খুব ব্যয়বহুল ও ঝুঁকিপূর্ণও বটে।